ঢাকা, রবিবার ২১ এপ্রিল ২০২৪, ০৭:৩৬ পূর্বাহ্ন
নওগাঁর মান্দায় ঘাস মারা বিষ প্রয়োগ করে আমের চারা মেরে ফেলার অভিযোগ
গোলাম রাব্বানী

নওগাঁর মান্দায় প্রতিপক্ষের লোকজন ঘাস মারা বিষ প্রয়োগ করে প্রায় সাড়ে ১২ হাজার আমের চারা গাছ মেরে ফেলেছে বলে অভিযোগ পাওয়া করেছে নার্সারী মালিক ইকবাল হোসেন।

নওগাঁ জেলার মান্দা উপজেলায় প্রতিপক্ষের লোকজনের দেয়া ঘাস মারা বিষ প্রয়োগ করে নার্সারী মালিক ইকবাল হোসেনের প্রায় সাড়ে ১২ হাজার আমের চারা গাছ মেরে ফেলেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটনাটি ঘটেছে মান্দা উপজেলার কুসুম্বা ইউনিয়নের চককুসুম্বা গ্রামে। এঘটনাকে কেন্দ্র করে নার্সারী মালিক ইকবাল হোসেন জনকে আসামী করে মান্দা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

নার্সারী মালিক উপজেলার কুসুম্বা ইউপির চককুসুম্বা গ্রামের মৃত আজিমুদ্দিনের ছেলে। অভিযুক্তরা হলেন, একই গ্রামের তাইজুল ইসলাম (৩৪), মিন্টু (৩০), নান্টু (২৮), রেজাউল (৪৪), মুনছুর (৪০) লুৎফর রহমান।

ভুক্তভোগী অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, দীর্ঘদিন থেকে প্রতিপক্ষরা আমার ক্রয়কৃত সম্পত্তি বড়পই মৌজার ১০৯৯ নং খতিয়ানের ৩৩৪ দাগের ৫৩ শতক জমি বিভিন্নভাবে দখলের চেষ্টা করছেন। এরই জের ধরে গত শুক্রবার (২০ আগষ্ট) দুপুরে পরিকল্পিতভাবে অভিযুক্তরা সাড়ে ১২ হাজার আমের চারা হাজার কলম চারা গাছে বিসাক্ত ঘাসমারা বিষ প্রয়োগ করে চলে যান।

এঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী কাউসার মোল্লা বলেন, পাশের নার্সারীতে আমি কাজ করছিলাম। এসময় তাইজুল ইসলাম আম গাছে বিষ প্রয়োগ করেন। আমি নিষেধ করলে তিনি বলেন, আমার জমিতে তারা চারা রোপন করেছে কেন? এই জন্য চারাগুলোতে বিষ প্রয়োগ করছি।

এব্যাপারে অভিযুক্তদের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ধানের চারাতে বিষ প্রয়োগ করতে গিয়ে বাতাসে উড়ে গিয়ে আমের চারাতে পড়েছে। এজন্য গাছগুলো মারা গেছে।

মান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহিনুর রহমান বলেন, ঘটনায় একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

2 responses to “নওগাঁর মান্দায় ঘাস মারা বিষ প্রয়োগ করে আমের চারা মেরে ফেলার অভিযোগ”

  1. For newest information you have to pay a quick visit web and on the web I found this web page as a most excellent
    website for hottest updates.

  2. This information is worth everyone’s attention.
    When can I find out more?

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x