ঢাকা, বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১, ০৬:০৩ পূর্বাহ্ন
কুড়িয়ে পাওয়া অস্ত্রটি উদ্ধার করল কালিহাতী থানা পুলিশ
মো: শরিফুল ইসলাম, টাঙ্গাইল

সেই কুড়িয়ে পাওয়া অস্ত্র উদ্ধার করেছে কালিহাতী থানা পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (২২ জুলাই) বিকালে পাইকড়া ইউনিয়নের গোলড়া পূর্বপাড়া এলাকার আব্দুল হাই ওরফে টুক্কুর বাড়ির পাশে ছাইয়ের ডিপো থেকে উদ্ধার করা হয়।

এলাকাবাসী জানায়, প্রায় এক মাস আগে আব্দুল হাই ওরফে টুক্কু মাছ ধরতে গিয়ে অস্ত্রটি কুড়িয়ে পায়। অস্ত্রটি তার কাছে রেখে দেন। কয়েকদিন পর ওই অস্ত্রটি তার নাতি জিহাদের কাছে রাখতে দেয়। জিহাদ তার বন্ধুদের অস্ত্রটি দেখালে এলাকায় জানা জানি হয়। পরে বিষয়টি স্থানীয় ইউপি সদস্য মোতালেব হোসেনকে অবগত করেন। তিনি বিষয়টি কালিহাতী থানা পুলিশকে জানালেও কোন ব্যবস্থা নেয়নি।

টুক্কুর ছেলের বউ শিল্পী বেগম বলেন, যে পিস্তলটি পেয়েছিলো সেটি মরিচা পড়া, অকেজো। আমার শ্বশুড় পাওয়ার পর ঘর রেখে দেয়। আমার ছেলে তার বন্ধুদের দেখালে এলাকায় জানাজানি হয়। বিষয়টি স্থানীয় মেম্বার মোতালেবকে জানানো হয়। মেম্বার পুলিশের কাছে জমা দেওয়ার দায়িত্ব নেয়। পুলিশকে জানালে টাকা দাবি করেন। পরে কয়েক দিন পর মেম্বার নিজেই এসে পিস্তলটি ফেলে দিতে বলেন। পরে আমরা পিস্তলটি ফেলে দিয়েছি।

আব্দুল হাই টুক্কু বলেন, মাছ ধরতে গিয়ে এক মাস আগে অস্ত্রটি পেয়েছিলাম। অকেজো দেখে খেলনা হিসেবে বাড়ির শিশুদের জন্য এনেছিলাম। মেম্বারকে জানালে সে পুলিশকে অবগত করেন। কিন্তু ওই সময় পুলিশ আসেনি।

ইউপি সদস্য মোতালেব বলেন, বিষয়টি কালিহাতী থানার এসআই ফয়েজকে জানানো হলেও তিনি বিশেষ কারনে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি। বৃহস্পতিবার থানা থেকে আল আমিন নামের এক এসআই এসে অস্ত্রটি উদ্ধার করে নিয়ে যায়। পাইকড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আজাদ হোসেন বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই।

পাইকড়া ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান সৈয়দ নুরুজ্জামান মিন্টু বলেন, পাঁচদিন আগে ইউপি সদস্য মোতালেব ও আব্দুল হাই টুক্কুর মাধ্যমে জানতে পারি। ৩ দিন আগে বিভিন্ন মহল ও এমপি সোহেল হাজারীকে অবগত করা হয়। সোহেল হাজারী জানান, ঈদের পরে ঢাকা থেকে এসে ওসির সাথে কথা বলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে অস্ত্রটি অকেজো।

কালিহাতী থানার ওসি মোল্লা আজিজুর রহমান বলেন, ইউপি সদস্যের উপস্থিতিতে পুলিশ অস্ত্র উদ্ধার করে থানায় নিয়ে এসেছে। এরপর আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x