ঢাকা, সোমবার ১৮ অক্টোবর ২০২১, ০৭:১৫ অপরাহ্ন
করোনায় চট্টগ্রামে নারীর মৃত্যু বেশি
দৈনিক ডাক অনলাইন ডেস্ক

চট্টগ্রামে করোনা সংক্রমণে সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় মোট মৃত্যুর ৮৭.৫ শতাংশই নারী। এটি এযাবৎকালে চট্টগ্রামে এক দিনে সর্বোচ্চ নারীমৃত্যুর ঘটনা। শুধু তাই নয়, সর্বশেষ গত এক মাসেও পুরুষের চেয়ে বেশি সংখ্যায় নারীর মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্তের সংখ্যায়ও পুরুষকে ছাড়িয়ে গেছে নারী রোগীর সংখ্যা।

উদ্ভূত পরিস্থিতিকে উদ্বেগজনক বলে উল্লেখ করছেন বিশেষজ্ঞরা। তাঁদের মতে, চট্টগ্রামে পুরুষের তুলনায় নারীদের টিকা গ্রহণের হার কম। সেই সঙ্গে করোনায় আক্রান্ত হলেও অনেকেই বাসাবাড়িতে অবস্থান করে ফার্মেসি থেকে ওষুধ কিনে খাচ্ছে। পাশাপাশি দেরিতে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হচ্ছে। অবস্থা জটিল হলেই কেবল নিরুপায় হয়ে অনেকে হাসপাতালে ছুটছে। দেরিতে হাসপাতালে আসার কারণে তাদের অনেককে বাঁচানো যাচ্ছে না। একটি বিষয় সবাইকে বুঝতে হবে, করোনার এই ভেরিয়েন্ট থেকে বাঁচতে টিকা গ্রহণের বিকল্প নেই। সেই সঙ্গে স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব মানতে হবে।

চট্টগ্রামে গতকাল বুধবার সকাল ৮টা পর্যন্ত পূর্ববর্তী ২৪ ঘণ্টায় করোনা সংক্রমণে মারা যাওয়া ১৬ জনের মধ্যে ১৪ জনই নারী। গত বছরের ২ এপ্রিল নগরে প্রথম করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হওয়ার পর এক সপ্তাহের মাথায় একজনের মৃত্যু হয়। এর পর থেকে গত প্রায় ১৬ মাসের মধ্যে গতকালই এক দিনে সর্বোচ্চ সংখ্যায় নারী মারা যাওয়ার ঘটনা ঘটল।

চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন কার্যালয়ের করোনার তথ্য পর্যালোচনা করে জানা গেছে, করোনা আক্রান্ত হয়ে গত ৪ জুলাই থেকে গতকাল পর্যন্ত ৩১ দিনে জেলায় ২৯৩ জন মারা গেছে। তাদের মধ্যে পুরুষ ১৪৬ ও নারী ১৪৭ জন। এর আগে গত ৭ জুলাই পর্যন্ত (প্রায় ১৫ মাস) মোট মৃত্যুর সংখ্যা ছিল ৭১৭। তাদের মধ্যে নারী ২২৯ ও পুরুষ ছিল ৪৮৮ জন। সে হিসাবে ওই দিন পর্যন্ত মোট মৃত্যুর ৩১.৯৪ শতাংশ নারী ও ৬৮.০৬ শতাংশ পুরুষ।

গতকাল পর্যন্ত ৩১ দিনে চট্টগ্রামে করোনা আক্রান্ত হয়েছে মোট ২০ হাজার ৬১ জন। তাদের মধ্যে পুরুষ ১৪ হাজার ৯২২ ও নারী ১১ হাজার ১৩৯ জন। আর ৭ জুলাই পর্যন্ত জেলায় মোট আক্রান্ত হয়েছে ৪০ হাজার ৬০ জন (৬৬.৩৬ শতাংশ) পুরুষ ও ২০ হাজার ৩০৮ জন (৩৩.৬৪ শতাংশ) নারী।

সে হিসাবে গতকাল পর্যন্ত চট্টগ্রামে করোনা আক্রান্ত হয়ে গত ১৬ মাসে মোট মারা গেছে এক হাজার ১০ জন। এর মধ্যে নারী ৩৭৬ জন (৩৭.২৩ শতাংশ) ও পুরুষ ৬৩৪ জন (৬২.৭৭ শতাংশ)। মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে ৮৬ হাজার ৪২৯ জন। তাদের মধ্যে পুরুষ ৫৪ হাজার ৯৮২ (৬৩.৬২ শতাংশ) ও নারী ৩১ হাজার ৪৪৭ জন (৩৬.৩৮ শতাংশ)।

এসব তথ্যে দেখা যায়, গত এক মাসের ব্যবধানে পুরুষ আক্রান্তের সংখ্যা কমলেও নারী আক্রান্ত বেড়েছে। একইভাবে নারীর মৃত্যু বেড়েছে, আর কমেছে পুরুষের মৃত্যু। গত ৩১ দিনে মোট শনাক্ত অনুপাতে নারী মৃত্যুহার ১.২ ও পুরুষ মৃত্যুহার ১.১৫ শতাংশ।

চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বী গতকাল বিকেলে কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘করোনার এই ভেরিয়েন্ট নারী, পুরুষ, বয়স কিছুই মানছে না। সবাই আক্রান্ত হচ্ছে। পুরুষদের অনেকে দ্রুত চিকিৎসার জন্য এলেও নারীরা হাসপাতালে আসছে দেরিতে। আবার করোনার টিকা গ্রহণেও পুরুষের চেয়ে পিছিয়ে নারীরা।’

চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে করোনার চিকিৎসাসেবায় অন-কলে থাকা কলেজের হৃদরোগ বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. ইব্রাহিম চৌধুরী বলেন, ‘নারীর মৃত্যু বাড়ার বিভিন্ন কারণের মধ্যে একটি হচ্ছে তাদের টিকা গ্রহণের হার কম। নারীরা আক্রান্ত হলেও অনেকে অবহেলার কারণে যথাসময়ে হাসপাতালে আসছে না। দেরিতে আসার কারণে তাদের শারীরিক অবস্থা বিশেষ করে অক্সিজেন স্যাচুরেশন অনেক কমে যায়। এ ছাড়া নানা জটিলতা থাকায় তাদের মৃত্যুহার বাড়তে পারে।’

চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের করোনা ইউনিটের প্রধান সিনিয়র কনসালট্যান্ট ডা. আবদুর রব বলেন, ‘নারীরা বেশি আক্রান্ত হচ্ছে। মৃত্যুর সংখ্যাও কম নয়। দেখা যায় অক্সিজেন স্যাচুরেশন ৭০ পর্যন্ত নেমে যাওয়ার পর গ্রাম থেকে এসে রোগী ভর্তি হচ্ছে। হাসপাতালে দেরিতে আসায় অবস্থা জটিল হয়ে পড়া রোগীদের বাঁচানো কঠিন হয়ে পড়ে।’

সিভিল সার্জন কার্যালয়ের তথ্য বিশ্লেষণে দেখা যায়, গত ৭ ফেব্রুয়ারি চট্টগ্রামে টিকা দেওয়া শুরু হওয়ার পর গত মঙ্গলবার পর্যন্ত নারীদের চেয়ে পুরুষের টিকা গ্রহণের হার বেশি। এখানে ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে ৭ জুলাই পর্যন্ত কোভিশিল্ড প্রথম ডোজ টিকা গ্রহণ করেছে চার লাখ ৫৩ হাজার ৭৬০ জন। তাদের মধ্যে নারীর সংখ্যা এক লাখ ৭৮ হাজার ৩৬৩; বাকি দুই লাখ ৭৫ হাজার ৩৯৭ জন পুরুষ।

চট্টগ্রামে ৮ এপ্রিল থেকে ৭ জুলাই পর্যন্ত টিকার দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণ করেছে তিন লাখ ৪৮ হাজার ৩৩৫ জন। তাদের মধ্যে পুরুষ দুই লাখ ১৮ হাজার চারজন ও নারী এক লাখ ৩০ হাজার ৩৩১ জন। এ ছাড়া গত ১৯ জুন থেকে সিনোফার্মের প্রথম ডোজ টিকা নিয়েছে এক লাখ ৩৯ হাজার ৮৭৮ জন। তাদের মধ্যে পুরুষ ৮৬ হাজার ৫৭১ ও নারী ৫৩ হাজার ৩০৭ জন। তবে একই টিকার দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণে পুরুষের চেয়ে নারীর সংখ্যা ৩ হাজার ১৭ জন বেশি। ১৯ জুলাই থেকে গত মঙ্গলবার পর্যন্ত এই দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণ করেছে চার হাজার ৮৩৩ জন। এর মধ্যে নারী দুই হাজার ৫৭৫ ও পুরুষ দুই হাজার ২৫৮ জন।

এ ছাড়া গত ১৩ জুলাই থেকে গত মঙ্গলবার পর্যন্ত মডার্নার প্রথম ডোজ গ্রহণ করেছে এক লাখ ২১ হাজার ২৭২ জন। তাদের মধ্যে নারী ৪৯ হাজার ৬৪ ও পুরুষ ৭২ হাজার ২০৮ জন।

এদিকে গতকাল পর্যন্ত চট্টগ্রামে মোট করোনা শনাক্তের হার ১৪.৯৬ শতাংশ এবং শনাক্ত অনুপাতে মৃত্যুহার ১.১৭ শতাংশ।

2 responses to “করোনায় চট্টগ্রামে নারীর মৃত্যু বেশি”

  1. Glo Extracts says:

    … [Trackback]

    […] Read More Information here to that Topic: doinikdak.com/news/43855 […]

  2. … [Trackback]

    […] Find More to that Topic: doinikdak.com/news/43855 […]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x