ঢাকা, সোমবার ২৫ অক্টোবর ২০২১, ০৭:৪৮ অপরাহ্ন
বাংলাদেশ বঙ্গবন্ধুর আদর্শে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ -নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী
জাহিদ হাসান অন্তর  (দিনাজপুর)

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি বলেছেন,  আমরা জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী পালন করছি। যারা বঙ্গবন্ধুকে কলংকিত করার চেষ্টা করেছিল, যারা বঙ্গবন্ধুকে অপমানিত করেছে, যারা বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের পুরস্কৃত করেছে আজকে তারা মহাঅন্ধকারে তলিয়ে গেছে। তারা আজকে কোথাও নাই। আজকে জিয়াউর রহমানের কি অবস্থা। জিয়া পরিবারের কি অবস্থা। তার সহধর্মিনী অপরাধী হয়ে জেল খাটছে। তার এক ছেলে পলাতক। আরেক ছেলে মাদকাসক্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছে। এই হচ্ছে জিয়া পরিবারের অবস্থা। জিয়া, খালেদা জিয়া বঙ্গবন্ধুকে অনেক অপমান ও অপদস্থ করেছে। কিন্তু আজকে বঙ্গবন্ধু শুধু বাংলাদেশে নয়। তাবত দুনিয়ায় বঙ্গবন্ধুর আদর্শ এখনো ধারন করে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে।

আজ দিনাজপুরের বিরলে ফুলবাড়ী হাট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ প্রাঙ্গণে এক সুধি সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর জন্মশতবার্ষিকী এবং মহান স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) তুলাই নদী খননের উদ্যোগ নেয়। বিআইডব্লিউটিএ কর্তৃক খননকৃত তুলাই নদীর দু’পাড়ে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির আয়োজন করে। প্রতিমন্ত্রী বিরলের ফুলবাড়ী ব্রীজ সংলগ্ন স্থানে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন এবং ফুলবাড়ী হাট উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে সুধি সমাবেশে বক্তৃতা করেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, করোনার দেড়বছর সময়ে পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ একদিনের জন্য বন্ধ হয়নি। নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের কার্যক্রম একদিনের জন্য বন্ধ থাকেনি। নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের কাজ সময়মত এগিয়ে গেছে। নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন প্রকল্পের কাজের অগ্রগতি ৯৫ ভাগ। এ হচ্ছে প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার বাংলাদেশ।

উল্লেখ্য, তুলাই নদীর নব্যতা পুনরুদ্ধারে দিনাজপুর জেলার বোচাগঞ্জ উপজেলার ঈশানিয়া হতে বিরল উপজেলার ভান্ডারা পর্যন্ত ৬৮ কিলোমিটার নৌপথ খনন করা হবে। প্রায় ২৬ লাখ ঘনমিটার খনন কাজে প্রায় ৪৯ কোটি টাকা ব্যয় হবে। ২০২০ সালের নভেম্বরে খনন কাজ শুরু হয়েছে। আগামী বছরের নভেম্বর পর্যন্ত এ কাজের মেয়াদ রয়েছে। এ পর্যন্ত ২৩.৫৮ লাখ ঘনমিটার খনন হয়েছে। তুলাই নদী খননের ফলে নদীর পানিধারণ ক্ষমতা বৃদ্ধি পেয়েছে। কৃষি জমিতে সেচ কাজের সুবিধা ও মৎস্য উৎপাদন বৃদ্ধি পাবে এবং কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হবে। নদীর দু’পাড়ে বৃক্ষরোপণের ফলে পরিবেশগত ভারসাম্য ফিরিয়ে আনতে সহায়ক হবে।

বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বিআইডব্লিউটিএ’র প্রকল্প পরিচালক রকিবুল ইসলাম তালুকদার, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আব্দুল ওয়াজেদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব সবুজার সিদ্দিক সাগর, সাধারণ সম্পাদক রমাকান্ত রায়।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x