ঢাকা, মঙ্গলবার ২৪ মে ২০২২, ০৯:৫৭ অপরাহ্ন
ফেনীর সোনাগাজী পৌর নির্বাচনে ৯ ইউপি চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে ভোট ডাকাতির প্রস্তুতি
পেয়ার আহাম্মদ চৌধুরী, ফেনী জেলা প্রতিনিধি:
ফেনীর সোনাগাজী পৌর নির্বাচনে ৯টি কেন্দ্রের ভোট ডাকাতির জন্য উপজেলার ৯ ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে কমিটি গঠন করা হয়েছে। ফেনী থেকে অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীদের ভাড়া করে নিয়ে আসা হবে। তারা নির্বাচনের সার্বিক পরিবেশ কলুষিত করে ভোটারদের মাঝে ভয়ভীতি ও আতংক ছড়িয়ে নিজেরা কেন্দ্র দখল করে ইচ্ছামতো ভোট কেড়ে নিবে।
১৫ সেপ্টেম্বর বুধবার পৌর এলাকার ফুড গার্ডেন রেস্টুরেন্টে সংবাদ সম্মেলনের সময় এমন অভিযোগ করেন পৌরসভা নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী আওয়ামীলীগ কর্মী আবু নাসের।

সরকারী দলের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে তিনি বলেন, তফসিল ঘোষিত হলে নির্বাচনে অংশগ্রহন করতে মননোনয়ন ফরম সংগ্রহ করার পর প্রার্থীতা প্রত্যাহার করে নিতে ফেনী জেলা আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে আমার উপর চাপ সৃষ্টি করা হয়। আমি আমার অবস্থানে অনড় থাকলে বাড়ি ঘরে হামলা চালানো হয়। আমরা খবর পেয়েছি তারা নির্বাচনের ২৪ ঘন্টা আগে বহিরাগত কয়েক হাজার সন্ত্রাসী পৌর এলাকায় নিয়ে এসে ভোটারদের ভয়ভীতি দেখিয়ে তান্ডবলীলা চালাবে। ইতিমধ্যে তারা ভোটারদের ভয়ভীতি প্রদর্শন শুরু করেছে।অব্যহতভাবে আমার কর্মী সমর্থকদের হুমকি দেওয়া হচ্চে। নির্বাচনি ব্যানার ফেস্টুন লাগানোর সাথে সাথে ছিড়ে ফেলছে। আওয়ামীলীগের জেলা কমিটির দুইজন প্রভাবশালী নেতা তাদের দলীয় মতবিনিময় সভায় প্রকাশ্যে কেন্দ্র দখলের ঘোষনা দিয়েছে যাহা ইতিমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।
আওয়ামীলীগের নৌকা প্রতিকের প্রার্থী বর্তমান মেয়র উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক রফিকুল ইসলাম খোকন সরকারী উন্নয়ন কর্মকান্ডের কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎ করে সম্পদের পাহাড় গড়ে তুলেছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

তিনি আরো বলেন, সরকারী প্রনোদনা বর্তমান মেয়রের খাস লোকেরা পেয়েছে। বাড়ি ঘর করতে লক্ষ লক্ষ টাকা ঘুষ দিতে হয়েছে। নাগরিকদের জন্ম নিবন্ধনের নামে হয়রানী চরমে উঠেছে। পৌরসভার যোগাযোগ অবকাঠামোর কাঙ্খিত উন্নয়ন করা হয়নি। উন্নয়নের নামে হয়েছে হরিলুট।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে প্রশাসনের কর্মকান্ডে সন্তুষ্টি প্রকাশ করে তিনি এসব দুর্বৃত্তদের সন্ত্রাসী কার্যকলাপ মোকাবেলা করে পৌরবাসীর ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠা করার জন্য তিনি শেষ পর্যন্ত নির্বাচনী মাঠে থাকার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

মেয়র খোকন তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, নির্বাচনে পরাজিত হওয়ার আশংকা থেকে প্রতিপক্ষ প্রার্থী তার বিরুদ্ধে কাল্পনিক অভিযোগ করছে। বিগত ৫ বছরে যে উন্নয়ন করেছি তাতে কেন্দ্র দখলের কোন প্রয়োজন হবেনা। পৌরবাসী স্বতঃস্ফূর্ত হয়ে কেন্দ্রে এসে আমাকে ভোট দিবে। আমি কোন দুর্ণীতির সাথে জড়িত না। বরং যিনি অভিযোগ করেছে তার বিরুদ্ধে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের কয়েকশ একর ভূমি দখল সহ বহু অনিয়মের অভিযোগ রয়েছে।

পৌরসভা নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা সোনাগাজী উপজেলা নির্বাহী অফিসার এএম জহিরুল হায়াত বলেন, নির্বাচন শতভাগ সুস্থ্য হবে। আমরা কাউকে ভোট কেন্দ্র দখল করতে দেবোনা। সুস্থ্য নির্বাচনের স্বার্থে যাহা যাহা করা দরকার ইতিমধ্যে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে।

সোনাগাজী পৌরসভা নির্বাচনে আগামী ২০ সেপ্টেম্বর ভোটগ্রহন অনুষ্ঠিত হবে। ৯টি কেন্দ্রে ১৫ হাজার ৯শ ৮৫ জন ভোটার ভোটাধিকার প্রয়োগ করবে। নির্বাচনে অংশগ্রহন করছেনা প্রধান রাজনৈতিক দল বিএনপি জামাত জোট। নির্বাচনে অংশগ্রহন করছে আওয়ামীলীগের প্রার্থী বর্তমান মেয়র রফিকুল ইসলাম খোকন, আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সাবেক যুবলীগ নেতা শেখ সেলিম, স্বতন্ত্র প্রার্থী আওয়ামীলীগ কর্মী আবু নাসের, ইসলামী আন্দোলনের হাফেজ হিজবুল্লাহ। নির্বাচনী মাঠে একক আধিপত্য বিস্তার করেছে সরকারী দলের প্রার্থী। পুরো উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে শত শত নেতাকর্মী নৌকা প্রতিকের প্রার্থীর পক্ষে গনসংযোগ করছে। অন্য প্রার্থীরা মাংকিং ও ব্যানার ফেস্টুন লাগানোর মাঝে তাদের নির্বাচনি কার্যক্রম সীমাবদ্ধ রেখেছে। সরজমিনে দেখা গেছে পৌরসভা এলাকার ভোটারদের মাঝে নির্বাচনি আমেজ নেই বল্লে চলে।
সিংহভাগ ভোটার ও পৌরবাসীর ভাষ্যে তাদের মনে অজানা আতংক বিরাজ করছে। গত বারের ভোটের পরিবেশ প্রত্যক্ষ করে অজানা আতংকে ভুগছে বলে জানান তারা।তাদের অভিযোগ গত পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামীলীগ প্রার্থীর বহিরাগত শত শত সমর্থক ভোটের রাতেই সব কেন্দ্র দখল করে নেয়।সাধারন ভোটারদের কাউকে কেন্দ্রে প্রবেশ করতে দেওয়া হয়নি। যারাই কেন্দ্রে যাওয়ার চেষ্টা করেছে তাদের মারধর করে তাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

গতবার ভোট দিতে গিয়ে মারধরের শিকার হয়েছে একাধীক ব্যক্তি যারা হয়রানীর ভয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক তারা বলেন, প্রশাসনের আশার বানী কাগজে কলমে সীমাবদ্ধ। সরকারী দলের কেন্দ্র দখলের সময় প্রশাসন তেমন ভূমিকা অতিতেও রাখেনি এবারের নির্বাচনেও রাখবেনা। মোদ্দা কথা ফেনী জেলায় ফেনী স্টাইলে নির্বাচন হবে তাতে সন্দেহ করার কোন কারন নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x