ঢাকা, রবিবার ২২ মে ২০২২, ১১:৪৪ অপরাহ্ন
ঘুষের টাকা হজম করতে না পেরে প্রধান শিক্ষক চেক ফিরিয়ে দিলেও টাকা নেই একাউন্টে!
মোঃ মনিরুল ইসলাম, পাইকগাছা(খুলনা)

চাকুরী দেওয়ার নামে পাইকগাছায় এক প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে ঘুষ গ্রহন ও চাকুরী দিতে ব্যর্থ হওয়ায় চেকের মাধ্যমে টাকা ফেরৎ দেওয়ার অভিযোগ পাওয়াগেছে।

পাইকগাছার আমিরপুর নিন্মমাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের এ ঘটনাটি এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছে।

অভিযোগে জানানো হয়, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পঙ্কজ সানা অফিস সহকারী পদে চাকুরী দেয়ার নামে প্রায় এক বছর আগে উপজেলার গড়–ইখালী ইউনিয়নের দক্ষিণ আমিরপুরের মৃত নিরঞ্জন সরকারের ছেলে সনৎ সরকারের কাছ থেকে ৩ দফায় ৯ লক্ষ ২২ হাজার টাকা ঘুষ গ্রহন করেন। তবে স্থানীয় পর্যায়ে নানা বিরোধসহ আইনী জটিলতায় ঝুলে যায় নিয়োগ কার্যক্রম।

এদিকে সনৎ তার প্রতিবেশী সুব্রত সরকারের কাছে জমি বিক্রি করার শর্তে বিভিন্ন জনের কাছ থেকে ধার-দেনা করে ঐ টাকা প্রধান শিক্ষক পঙ্কজ সানার হাতে তুলে দিয়েও স্কুলে নিয়োগ না পাওয়ায় পরষ্পরের মধ্যে সম্পর্কের অবনতি ঘটে।

স্থানীয় পর্যায়ে টাকা আদায়ে ব্যর্থ হলে ভূক্তভোগী সনৎ এর পরিবার বিষয়টি নিয়ে সম্পতি স্থানীয় পাইকগাছা-কয়রার সংসদ সদস্য মো: আক্তারুজ্জামান বাবুর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

এক পর্যায়ে প্রধান শিক্ষক পঙ্কজ কুমার সানা প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নে অফিস সহকারী পদে উক্ত টাকা নেওয়ার কথা স্বীকার করেন। ১৫ মধ্যে দিনের মধ্যে টাকা ফেরৎ দেবার কথা বলে প্রধান শিক্ষক পৃথক-পৃথক দুটি চেকের মাধ্যমে গত ১১ আগস্ট সনৎ এর হাতে সাড়ে ৯ লক্ষ টাকার চেক দু’টি তুলে দেন। এদিকে পঙ্কজ সনৎকে সাড়ে ৯ লাখ টাকার দু’টি চেক দিলেও তার একাউন্টে কোন টাকা না থাকায় তারা রীতিমত আরেক বিপাকে পড়েছেন।

এ ব্যাপারে ভূক্তভোগী সনৎ এর বৃদ্ধা মা আনারতি অভিযোগ করেন, ছেলের জমি বিক্রিসহ ধার-দেনা করে এত টাকা প্রধান শিক্ষকের কাছে তুলে দিয়ে চাকুরী কিংবা কোনটাই ফেরৎ না পেয়ে তাদেও এখন পথে বসার অবস্থা হয়েছে। দ্রুত টাকা ফেরৎ দেওয়ার কথা বলে প্রধান শিক্ষক পঙ্কজ কুমার সানা বলেন, ইতোমধ্যে তার ছেলে গুরুতর অসুস্থ্য হলে চিকিৎসার জন্য খুলনায় নিয়েছিলেন। এতে করে তার টাকা দিতে কিছুটা বিলম্ব হচ্ছে। এব্যাপারে সংশ্লিষ্ট পরিবারসহ সচেতন এলাকাবাসী সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x