ঢাকা, সোমবার ২৫ অক্টোবর ২০২১, ০৭:৩৪ অপরাহ্ন
আটঘরিয়ায় পাটের আঁশ ছড়াতে ব্যস্ত কৃষক
নুরুল ইসলাম খান আটঘরিয়া,পাবনা

পাবনার আটঘরিয়া উপজেলার পাট চাষীরা এখন পাটের আঁশ ছড়াতে ব্যস্ত সময় পার করছেন। সকাল থেকে সন্ধা পর্যন্ত পাটের আঁশ ছড়াচ্ছেন তারা। কিন্তু কৃষক বলছেন পানির অভাবে পাট জাঁগ দিতে পারছে না। হতাশায় তাদের মাথায় হাত। তবে শ্রমিক সংকট আর পাটের দাম একটু কম হওয়া লোকসানের মুখ দেখতে হচ্ছে কৃষকের।

উপজেলার ডেঙ্গাগ্রাম, কয়রাবাড়ী, হিরানন্দনপুর গ্রামের জামাল হোসেন, সেলিম আলী, টিপু সুলতান, ফরিদ হোসেন, আলামিন হোসেন, আবু মৃধাসহ ২০ থেকে ৩০ জন পাট চাষির সাথে কথা হলে তারা জানান, বর্তমানে পাট কাটা, জাগ দেওয়া,পাটের আঁশ ছড়ানো, রোদে শুকানো কাজ চলছে। তবে শ্রমিক সংকট থাকায় আমরা নিজেরাই এ-কাজ করছি। তবে পাট আঁশ ছড়ানোর কাজে সহযোগিতা করছেন পরিবারের সদস্যরা। আবার অনেকেই পাট ছড়ার কাজ করে বাড়তি আয় উপার্জন করছেন। আবার অনেকেই শুধু পাট কাঠির বিনিময়ে পাট আঁশ বাছাই করে দিচ্ছেন। এছাড়া তোশা ও দেশীয়ও নানা জাতের পাট আবাদ হয়েছে। কিন্তু হঠাৎ পাটের দাম কমেছে।

কৃষকরা আরও জানান, পাট রোপন করার সময়ে প্রচন্ড খড়া হয়েছে। এসময় পানির অভাব ছিল। যার কারনে আমাদের এবার পাটের ভালো ফলন হয়নি। তবে এবছর পানির অভাবে আমরা পাট জাগ দিতে পারছিনা। অল্পপানিতে পাট জাগ দিলে পাটের রং ভালো হয় না।

কৃষক জামাল উদ্দিন বলেন, সে ৭ বিঘা জমিতে পাট আবাদ করেছেন। প্রতিবিঘা জমিতে পাট আবাদ করতে ১৫ থেকে ১৬ হাজার টাকা খরচ হয়েছে। একবিঘা জমিতে ৭-৮ মন পাট হবে। তাই এবার পাটের দাম কম হওয়ায় যারা পাট আবাদ করেছে তাদের সবার লোকসান গুনতে হচ্ছে।

আটঘরিয়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ সজীব আল মারুফ জানান, এবছর উপজেলায় পাটের আবাদ হয়েছে ৪ হাজার ৬৫০হেক্টর জমিতে। তবে পাটের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৪ হাজার ১০০ হেক্টর। উপজেলার এবার লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি পাটের আবাদ হয়েছে। ফলনও হয়েছে এবার ভালো। তবে কৃষকরা এবছর ভালো দাম পাবেন বলে মনে করছেন এই কর্মকর্তা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x