ঢাকা, বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১, ০৫:১৬ পূর্বাহ্ন
সাংবাদিক দীন মাহমুদ ও পুত্রকে হত্যার হুমকির ঘটনায় প্রতিবাদ
মোঃ মনিরুল ইসলাম পাইকগাছা
খবর প্রকাশের জের ধরে সাংবাদিক শেখ দীন মাহমুদসহ পুত্রকে প্রকাশ্যে হত্যার হুমকির ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন স্থানীয় সাংবাদিকবৃন্দ। পাশাপাশি পারিপার্শ্বিক ঘটনার বিষয়ে তদন্ত পূর্বক আইনী ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পুলিশ প্রশাসনের প্রতি জোর দাবী জানিয়েছেন। প্রসঙ্গত, কপিলমুনির কাশিমনগর-তালা বাইপাস সড়কের ঘোষনগর এলাকায় দূর্ধর্ষ মোটরসাইকেল ছিনতাইয়ের ঘটনায় সংবাদ প্রকাশ ও ছিনতাইয়ের শিকার রেজাউলের পক্ষে কথা বলায় অনলাইন দৈনিক ইন্ডিপেন্ডেন্টবিডি.নিউজ এর প্রকাশকও সম্পাদক, কপিলমুনি সিটি প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও কশিমনগর বাজার ব্যবসায়ী সমিতির যুগ্ম-সম্পাদক শেখ দীন মাহমুদকে প্রকাশ্য দিবালোকে জবাই করে হত্যার হুমকি দিয়েছে স্থানীয় কতিপয় দুষ্কৃতিকারী। অভিযোগে জানাযায়, গত বুধবার (১১ আগস্ট) রাতে কাশিমনগর-তালা বাইপাসের ঘোষনগর এলাকা থেকে পাইকগাছা উপজেলার কপিলমুনির কাশিমনগর গ্রামের ওমর আলী গাজীর ছেলে রেজাউলের ভাড়ায় চালিত মোটর সাইকেলটি ছিনতাই হয়।
ঐ রাতেই ডুমুরিয়া থানার মাদারতলা পুলিশ ফাঁড়ির টহল পুলিশ ধাওয়া করে ছিনতাইকারীদের কাছ থেকে মোটরসাইকেলটি উদ্ধার করে। এসময় ছিনতাইকারীরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। এনিয়ে ইন্ডিপেন্ডেন্টবিডি.নিউজে সংবাদ প্রকাশ ও বিভিন্নস্থানে রেজাউলের পক্ষে কথা বলেন শেখ দীন মাহমুদ। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে শুক্রবার (১৩ আগস্ট) সকাল আনুমানিক সাড়ে ১০ টার দিকে কাশিমনগর গ্রামের মৃত আফান শেখ এর ছেলে কুদ্দুসসহ কয়েকজন ইন্ডিপেন্ডেন্ট কার্যালয়ের সামনে এসে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ শুরু করে। এক পর্যায়ে দীন মাহমুদ অফিসের বাইরে বেরিয়ে আসলে তারা তাকে জবাই করে হত্যার হুমকি দেয়। এসময় পাশে অবস্থানরত দীন মাহমুদের ছেলে শেখ নাদীর শাহ্ ঢাকা থেকে প্রকাশিত জাগো প্রতিদিনের উপজেলা প্রতিনিধি, ইন্ডিপেন্ডেন্টবিডির নির্বাহী সম্পাদক ও খুলনা থেকে প্রকাশিত দৈনিক খুলনা টাইমস’র স্টাফ রিপোর্টারকেও অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ ও মারতে উদ্যত হয়। একপর্যায়ে স্থানীয়রা এসে কুদ্দুসকে সরিয়ে নিয়ে যায়। এদিকে শুক্রবার সকালের ঘটনার পর থেকে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছেন সাংবাদিক শেখ দীন মাহমুদ তার ছেলে শেখ নাদীর শাহ্সহ গোটা পরিবার। এঘটনায় তাৎক্ষণিক বিষয়টি কাশিমনগর ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি সদস্য শেখ রবিউল ইসলাম ও কপিলমুনি পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক দেবাশীষকে জানানো হয়েছে বলে জানাগেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x