ঢাকা, সোমবার ৩০ জানুয়ারী ২০২৩, ০৮:১০ পূর্বাহ্ন
ইয়াবা সেবনের ভিডিও ভাইরাল, পদ হারাচ্ছেন ইউপি চেয়ারম্যান
অনলাইন ডেস্ক

সম্প্রতি ভাইরাল হওয়া ইয়াবা সেবনের ভিডিওর ফরেনসিক রিপোর্টে প্রমাণ পাওয়ায় ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার দুওসুও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুস ছালামের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করেছেন ইউএনও মোহা. যোবায়ের হোসেন।

চলতি বছরের ৩ জানুয়ারি বাংলাদেশ পুলিশ সিআইডি ঢাকার ফরেনসিক ল্যাবরেটারিতে পাঠানো ভাইরাল হওয়া ভিডিওটির সত্যতা পেয়েছে মর্মে উল্লেখ করে ইউএনওকে একটি প্রতিবেদন দেয় আইটি ফরেনসিক শাখা সিআইডি।

সেই রিপোর্টের ওপর ভিত্তি করে জেলার বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা ইউএনও যোবায়ের হোসেন জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের স্থানীয় সরকার উপপরিচালক বরাবরে ওই চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে সুপারিশ করে গত ১৫ জুন একটি লিখিত প্রতিবেদন জমা দেন।

ইউএনওর লিখিত প্রতিবেদনটির স্মারকে উল্লেখ করা হয়, ভাইরাল হওয়া ভিডিওর ওপর ভিত্তি করে বিভিন্ন গণমাধ্যমে গত বছরের ১৬ ডিসেম্বর বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার ৫নং দুওসুও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুস ছালাম ইউনিয়ন পরিষদের কক্ষে সহযোগীদের নিয়ে জুয়া ও মাদক সেবনসহ বিভিন্ন অভিযোগে সংবাদ পরিবেশন করা হয়।

পরে বিষয়টি জেলা প্রশাসনের দৃষ্টিগোচর হলে সংশ্লিস্ট ইউএনওকে তদন্ত করে একটি প্রতিবেদন দিতে বলেন। পরে কয়েক দফায় ইউএনও প্রতিবেদনও দাখিল করেন। কিন্তু তাতে সুস্পষ্ট মন্তব্য না থাকায় আবারও প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেয় জেলা প্রশাসন।

এ সময় ভাইরাল হওয়া ইয়াবা সেবনের ভিডিওটি কাটছাঁটের অভিযোগ করেন অভিযুক্ত চেয়ারম্যান আব্দুস ছালাম। পরবর্তীতে ভিডিওটি কাটছাঁট করা হয়েছে কি না তা যাচাইয়ের জন্য গত ৩ জানুয়ারি বাংলাদেশ পুলিশ সিআইডি ঢাকার ফরেনসিক ল্যাবরেটারিতে ভিডিওটি পাঠান ইউএনও জোবায়ের।

যোবায়ের হোসেন বলেন, চেয়ারম্যান অভিযোগ করেন ভিডিওটি কাটছাঁট করা হয়েছে। এ কারণে আমরা ভিডিওটি ফরেনসিকে পাঠায়। পরে সেই রিপোর্টে প্রমাণিত হয় যে এই ভিডিওতে কোনো কাটছাঁট করা হয়নি। তাই আমি জেলা প্রসাশন কার্যালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগে ওই চেয়ারম্যান এর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সুপারিশ করেছি।

সবশেষ ঢাকা সিআইডির ফরেনসিক ল্যাবরেটারিতে ভিডিওটি পরীক্ষার পর সত্যতার প্রমাণ মিলে। পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর ভিডিওটিতে কোনো রকম কাটছাঁট নেই উল্লেখ করে গত ১ জুন সিআইডি কর্র্তৃপক্ষ ইউএনও বরাবরে একটি প্রতিবেদন দিলে ইউএনও ওই চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করে স্থানীয় সরকার উপপরিচালক বরাবরে প্রতিবেদন জমা দেন।

এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের স্থানীয় সরকারের উপপরিচালক রামকৃষ্ণ বর্মণ জানান ইউএনওর প্রতিবেদনের ওপর ভিক্তি করে দ্রুতই পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x