ঢাকা, রবিবার ২৯ জানুয়ারী ২০২৩, ০৬:২৯ অপরাহ্ন
আজ আরও স্থায়ী ঠিকানা পাচ্ছে ৫৩ হাজার ৩৪০ পরিবার
দৈনিক ডাক অনলাইন ডেস্ক

গত জানুয়ারিতে প্রথম পর্যায়ে প্রায় ৭০ হাজার পরিবারকে ঘর দেওয়ার পর দ্বিতীয় পর্যায়ে একসঙ্গে আরো প্রায় ৫৩ হাজার ৩৪০টি অসহায় পরিবারকে ঘর দিল সরকার।

আজ রবিবার (২০ জুন) ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে দ্বিতীয় পর্যায়ে এসব পরিবারকে মুজিববর্ষের উপহার হিসেবে বিনা মূল্যে দুই শতক জমিসহ সেমি পাকা ঘর দেওয়ার কার্যক্রম উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আনুষ্ঠানিকভাবে ঘর হস্তান্তরকালে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে আজ প্রত্যেক উপকারভোগীর হাতে জমিসহ ঘর, কবুলিয়ত, দলিল, নামজারি ও গৃহসনদ হস্তান্তর করা হচ্ছে। স্থায়ী আশ্রয়স্থল পেতে যাওয়া মানুষ এরই মধ্যে মেতেছে উচ্ছ্বাস-উল্লাসে।

গরিব-অসহায় মানুষের মধ্যে যাঁদের জমি আছে, কিন্তু ঘর তৈরির সামর্থ্য নেই তাঁরা বিনা মূল্যে পাচ্ছেন এসব ঘর। আর যাঁদের জমিটুকুও নেই তাঁদের দুটোই দেওয়া হচ্ছে কোনো খরচ ছাড়া। এতে স্থায়ী ঠিকানা পেয়ে পাল্টে যাচ্ছে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের জীবনমান। নতুন জীবনবোধ তাঁদের সমাজে মর্যাদার সঙ্গে বেঁচে থাকার স্বপ্ন দেখাচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা টানা তৃতীয়বার ক্ষমতা গ্রহণের পর মুজিব জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে গরিব-অসহায় মানুষের জন্য বিশেষ কিছু করতে চাচ্ছিলেন। সে অনুযায়ী গত বছরের জুন মাসে সারা দেশে দুই শ্রেণিতে আট লাখ ৮৫ হাজার ৬২২টি পরিবারের তালিকা করা হয়। এই তালিকা ধরে পর্যায়ক্রমে ঘর দেওয়া শুরু করেছে সরকার। চলতি বছরের ২৩ জানুয়ারি প্রথম পর্যায়ে ৬৯ হাজার ৯০৪টি পরিবারকে ঘর হস্তান্তর করা হয়েছে। আজ রবিবার দ্বিতীয় পর্যায়ে একসঙ্গে ৫৩ হাজার ৩৪০টি পরিবারকে ঘরের চাবি বুঝিয়ে দেওয়া হচ্ছে।

চলমান এই প্রকল্পে আগামী ডিসেম্বর মাসের মধ্যে আরো এক লাখ ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে বিনা মূল্যে জমিসহ ঘর দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে কাজ করছেন প্রকল্পসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা। এই কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে ‘আশ্রয়ণ প্রকল্প-২’ শিরোনামে। সারা দেশে মাঠ প্রশাসনের মাধ্যমে সরাসরি এই প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

প্রকল্পসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা জানান, শেখ হাসিনা প্রথম মেয়াদে প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর ১৯৯৭ সালে আশ্রয়ণ প্রকল্পের মাধ্যমে গরিব-অসহায় মানুষের মাথা গোঁজার ঠাঁই করার উদ্যোগ নিয়েছিলেন। বর্তমান উদ্যোগে প্রায় ৯ লাখ পরিবার ঘর পাচ্ছে। এর আগে আশ্রয়ণ প্রকল্পসহ বিভিন্ন উদ্যোগে হস্তান্তর করা হয়েছে প্রায় পৌনে দুই লাখ ঘর ও ফ্ল্যাট। পুরো প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে এই উদ্যোগে উপকারভোগী পরিবার দাঁড়াবে পৌনে ১১ লাখে। প্রতি পরিবারে গড়ে পাঁচজন হিসাবে উপকারভোগীর সংখ্যা দাঁড়াবে প্রায় ৫৪ লাখ।

আজ সর্বোচ্চ ১২ হাজার ৪৩৬টি ঘর রংপুর বিভাগে প্রদান করা হচ্ছে। এ ছাড়া চট্টগ্রামে ১০ হাজার ৫৪৭টি ঘর, ঢাকায় সাত হাজার ৬৩০টি ঘর, রাজশাহীতে সাত হাজার ১৭২টি, বরিশালে ৩৭ হাজার ১৫৩টি, খুলনায় ৯১১টি, ময়মনসিংহে দুই হাজার ৫১২টি এবং সিলেট বিভাগে এক হাজার ৯৭৯টি ঘর প্রদান করা হচ্ছে।

আশ্রয়ণ প্রকল্পের তালিকানুযায়ী দেশে ভূমিহীন এবং গৃহহীন পরিবারের সংখ্যা দুই লাখ ৯৩ হাজার ৩৬১টি (ক-শ্রেণি)। আর শুধু গৃহহীন পরিবার হচ্ছে পাঁচ লাখ ৯২ হাজার ২৬১টি (খ-শ্রেণি)।

10 responses to “আজ আরও স্থায়ী ঠিকানা পাচ্ছে ৫৩ হাজার ৩৪০ পরিবার”

  1. … [Trackback]

    […] Read More on that Topic: doinikdak.com/news/27303 […]

  2. … [Trackback]

    […] Find More here to that Topic: doinikdak.com/news/27303 […]

  3. … [Trackback]

    […] There you can find 69811 more Info on that Topic: doinikdak.com/news/27303 […]

  4. … [Trackback]

    […] Here you can find 65631 additional Info to that Topic: doinikdak.com/news/27303 […]

  5. … [Trackback]

    […] Read More Information here on that Topic: doinikdak.com/news/27303 […]

  6. … [Trackback]

    […] Find More here on that Topic: doinikdak.com/news/27303 […]

  7. … [Trackback]

    […] Information to that Topic: doinikdak.com/news/27303 […]

  8. nova88 says:

    … [Trackback]

    […] Find More Information here on that Topic: doinikdak.com/news/27303 […]

  9. … [Trackback]

    […] Here you can find 84687 more Info to that Topic: doinikdak.com/news/27303 […]

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x